Skip to content

হার্ট অ্যাটাকের এক মাস আগে সংকেত দেয় শরীর

প্রতিদিন হার্ট অ্যাটাকের কারণে পুরো বিশ্বে প্রাণ যায় অনেকের। অথচ হার্ট অ্যাটাকের অন্তত এক মাস আগে থেকে শরীর নানা রকমের সংকেত দেয়। তাই হার্ট অ্যাটাকের আগেই সাবধান হতে হলে এবং সঠিক সময়ে চিকিৎসা নিলে প্রাণ রক্ষা করা সম্ভব।

ক্লান্তি: হুট করেই খুব ক্লান্ত লাগলে সেটা হতে পারে হার্ট অ্যাটাক হওয়ার পূর্ব লক্ষণ। বিশেষ করে নারীদের ক্ষেত্রে এটা বেশি লক্ষ্য করা যায়। ক্লান্তিটা দিনে দিনে বাড়তে থাকে এবং খুব সহজ কাজেই হাঁপিয়ে উঠার প্রবণতা লক্ষ্য করা যায়।

পেট ব্যথা: নানা কারণে পেট ব্যথা হতে পারে। তবে হার্ট অ্যাটাকের একটি পূর্ব লক্ষণও পেট ব্যথা। পেট ফেঁপে থাকা, খালি বা ভরা পেটে বমি ভাব বা ডায়রিয়াও হার্ট অ্যাটাকের পূর্ব সংকেত হতে পারে। তবে সেক্ষেত্রে একবার ব্যথা হয়ে সুস্থ হওয়ার খুব অল্প সময় পরে ব্যথা ফিরে আসে।

অনিদ্রা: হার্ট অ্যাটাক এবং স্ট্রোকের সঙ্গে অনিদ্রার সম্পর্ক আছে। বিশেষ করে নারীদের ক্ষেত্রে এটা বেশি লক্ষ্য করা যায়। হার্ট অ্যাটাকের পূর্ব লক্ষণ হিসেবে অনিদ্রার সমস্যায় অস্থিরতা থাকে। এছাড়াও খুব সকালে ঘুম ভেঙ্গে যাওয়ার সমস্যা দেখা দেয়।

ভারী নিঃশ্বাস: যদি নিঃশ্বাস নিতে কষ্ট হয়, বুক ভারী মনে হয়, বড় নিঃশ্বাস নিতে কষ্ট হয় তাহলে এটা হার্ট অ্যাটাকের পূর্ব সংকেত হতে পারে। হার্ট অ্যাটাক হওয়ার প্রায় ছয় মাস আগে থেকে শরীর এধরনের সংকেত দেয়।

চুল পড়া: হঠাৎ করেই চুল পড়া বেড়ে গিয়েছে? তাহলে হার্ট সুস্থ আছে কিনা পরীক্ষা করিয়ে নিন। কারণ ৫০ বছর হওয়ার পরে পুরুষের চুল পড়ে যাওয়ার সঙ্গে হার্ট অ্যাটাকের ঝুঁকি তৈরি হওয়ার সম্পর্ক থাকে।

অনিয়মিত হৃদস্পন্দন: দুশ্চিন্তায় কিংবা প্যানিক অ্যাটাকে অনেক সময় হৃদস্পন্দন হঠাৎ বেড়ে যায়। আবার ব্যায়ামেও বেড়ে যায়। কিন্তু এসব কারণ ছাড়াও যদি অনিয়মিত হৃদস্পন্দন লক্ষ্য করেন তাহলে অবশ্যই চিকিৎসকের সঙ্গে পরামর্শ করা উচিত। কারণ এটা হতে পারে হার্ট অ্যাটাকের পূর্ব লক্ষণ।

অতিরিক্ত ঘাম: নারীদের মেনোপজের সময় হরমোন পরিবর্তনের কারণে হঠাৎ অতিরিক্ত ঘাম হওয়া স্বাভাবিক। কিন্তু এছাড়া নারী বা পুরুষের হঠাৎ করেই অতিরিক্ত ঘাম হওয়া হার্ট অ্যাটাকের পূর্ব সংকেত হতে পারে।

বুক ব্যথা: অধিকাংশ মানুষই হার্ট অ্যাটাক হয়েছে সেটা বুঝতে পারে যখন প্রচণ্ড বুক ব্যথা শুরু হয়। কিন্তু হার্ট অ্যাটাক হওয়ার প্রায় এক মাস আগে থেকেও কিন্তু হালকা ব্যথা হতে পারে বুকে। আবার বাম হাতে, থুঁতনির নিচে, ঘাড়ে অথবা পেটেও ব্যথা হতে পারে। ব্যথা অল্প অথবা দীর্ঘ সময় থাকতে পারে। এধরনের ব্যথা হলে অবহেলা না করে চিকিৎসকের শরণাপন্ন হওয়া উচিত।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *