Home » এভিয়েশন » ইউনাইটেড এয়ারওয়েজের ফ্লাইট পরিচালনার ব্যাপারে আশাবাদ

ইউনাইটেড এয়ারওয়েজের ফ্লাইট পরিচালনার ব্যাপারে আশাবাদ

United-Airwaysক্যাপ্টেনদের আকষ্মিক কর্মবিরতির কারণে ফ্লাইট পরিচালনায় বিঘ্ন ঘটার পর খুব শিগগিরই ফ্লাইট পরিচালনার ব্যাপারে আশাবাদ করেছে ইউনাইটেড এয়ারওয়েজ কতৃপক্ষ।

গত আট বছর ধরে ইউনাইটেড এয়ারওয়েজ অভ্যন্তরীণ ও আন্তর্জাতিক রুটে ফ্লাইট পরিচালনা করে আসছে। প্রায় ৫৫,০০০ ফ্লাইট পরিচালিত হয়েছে, ২২ লক্ষাধিক যাত্রী পরিবহন করেছে বাংলাদেশের পুঁজিবাজারে বিমান পরিবহন খাতে একমাত্র পাবলিক লিমিটেড কোম্পানি।

গত ১৯ এপ্রিল ১২ জন ক্যাপ্টেনের স্বাক্ষরিত একটি চিঠি পরিচালক ফ্লাইট অপারেশন ডিপার্টমেন্ট, ইউনাইটেড এয়ারওয়েজের ব্যবস্থাপনা পরিচালক বরাবর ই-মেইলে পাঠানোর পর পূর্ব ঘোষণা ছাড়াই ২২ এপ্রিল ২০১৫ থেকে অভ্যন্তরীণ ও আন্তর্জাতিক রুটের সব ধরনের ফ্লাইট পরিচালনা থেকে ক্যাপ্টেনরা বিরত থাকেন। এর ফলে হাজার হাজার যাত্রীসাধারণ অনিশ্চিয়তার মধ্যে পড়েন। এর মধ্যে আন্তর্জাতিক রুটের যাত্রীরা অনেকেই ভিসা জটিলতায় পড়েছেন। যাত্রী সাধারণের অসুবিধার কথা বিবেচনা করে ইউনাইটেড এয়ারওয়েজ কর্তৃপক্ষ ইতোমধ্যে যাদের ভিসা জটিলতা আছে তাদেরকে প্রাধান্য দিয়ে বাংলাদেশ বিমানসহ অন্যান্য এয়ারলাইন্সের মাধ্যমে নির্দিষ্ট গন্তব্যে পৌঁছানোর ব্যবস্থা করেছেন। সম্মানিত যাত্রীসাধারণকে নির্দিষ্ট ট্রাভেল অ্যাজেন্সি কিংবা এয়ারলাইন্সের নিজস্ব সেলস অফিসে যোগাযোগ করার জন্য অনুরোধ করা যাচ্ছে।

উল্লেখ্য যে, ইউনাইটেড এয়ারওয়েজের অন্যান্য ডিপার্টমেন্টের প্রায় এক হাজার কর্মকর্তা-কর্মচারি কয়েকজন ক্যাপ্টেনের কর্মবিরতির সাথে কোনো ধরনের একাত্মতা প্রকাশ করেনি। সব ডিপার্টমেন্টের কর্মকর্তা ও কর্মচারিরা গুটিকয়েক ক্যাপ্টেনের কাছে জিম্মি হয়ে থাকতে পারে না বলে মত প্রকাশ করেছে। কর্মবিরতিতে অংশগ্রহনকারী ক্যাপ্টেনরা বেতন-ভাতাদির কথা উল্লেখ করেছে, অথচ শুধুমাত্র মার্চ মাসের বেতন দেয়া বাকী আছে, যা প্রক্রিয়াধীন। দ্রুততম সময়ে ক্যাপ্টেন নিয়োগের মাধ্যমে সব ধরনের উদ্ভূত পরিস্থিতি সমাধান করা হবে বলে ইউনাইটেড এয়ারওয়েজ কর্তৃপক্ষ আশাবাদ ব্যক্ত করছে।
প্রেস বিজ্ঞপ্তি। সূত্র : প্রিয়.কম