Home » বাছাইকৃত » পাঁচটি অভ্যাস, যা আসলে বদভ্যাস

পাঁচটি অভ্যাস, যা আসলে বদভ্যাস

Healthএমন কিছু অভ্যাস আছে, যা আপাতদৃষ্টিতে ভালো বলেই আমরা পালন করি৷ কিন্তু গবেষণায় দেখা গেছে সেগুলো ঠিক নয়৷

খাবার পরপরই ব্রাশ

খাওয়ার পর ব্রাশ করা খুবই ভালো অভ্যাস৷ তবে অম্লজাতীয় খাবার, যেমন টমেটো, কমলা, ইত্যাদি খাওয়ার সঙ্গে সঙ্গেই ব্রাশ না করে অন্তত আধা ঘণ্টা অপেক্ষা করা উচিত, বলে মনে করেন ব্রিটিশ দন্ত বিশেষজ্ঞ ডা. হাওয়ার্ড আর. গ্যাম্বল৷ কারণ এ সব খাওয়ার পরপরই অ্যাসিড দাঁতের সাদা অংশ এনামেল ও তার নীচের অংশ ডেনটিনকে আক্রমণ করে৷ ডা. গ্যাম্বল বলেন, সেসময় ব্রাশ করা মানে অ্যাসিডকে আক্রমণে সহায়তা করা৷

কোকাকোলা জিরো পান

ডায়বেটিস রোগী ও যাঁরা কম ক্যালরিযুক্ত খাবার খোঁজেন, তাঁদের কাছে কোকাকোলা জিরো কিংবা লাইট বেশ প্রিয়৷ তবে টেক্সাস বিশ্ববিদ্যালয়ের এক জরিপে এর কিছু ক্ষতিকর দিক পাওয়া গেছে৷ কোকাকোলা জিরোতে যেহেতু চিনির পরিবর্তে আর্টিফিশিয়াল সুইটেনার ব্যবহার হয়, তাই শরীরের জন্য প্রয়োজনীয় চিনির অভাব মেটাতে অন্য যে খাবার খাওয়া হয় তার মাধ্যমে শরীরে বেশি ক্যালরি প্রবেশ করে৷ ফলে মেদ বৃদ্ধি, ডায়াবেটিস সহ অন্য অসুখ হতে পারে৷

সপ্তাহান্তে বেশি ঘুমানো

অনেকেই মনে করেন কাজের দিনগুলোতে তাড়াতাড়ি ঘুম থেকে ওঠার কারণে যে সময়টুকু আমরা কম ঘুমাই, সপ্তাহান্তে ছুটির দিনগুলোতে সেটা পুষিয়ে নেয়া ভালো৷ কিন্তু সেটা করার কারণে অন্য একটি বিপত্তি ঘটে বলে গবেষণায় জানা গেছে৷ গবেষক দলের প্রধান ঘুম বিশেষজ্ঞ ডা. গ্রেগরি কার্টার বলেন, সপ্তাহান্তে বেশি সময় ঘুমালে শরীরের স্বাভাবিক ছন্দে পরিবর্তন ঘটে৷ ফলে পরের সপ্তাহের দিনগুলোতে শরীরে সবসময় কেমন যেন ঘুমঘুম ভাব অনুভূত হয়৷

অফিস থেকে ফিরে কাজ

অফিসের কাজে-কর্মে যদি প্রচণ্ড চাপ থাকে, তাহলে শরীরে কোর্টিসল হরমোনের পরিমাণ বেড়ে যায়৷ এরপর বাসায় ফিরে বিশ্রাম না নিয়ে সরাসরি কাজে লেগে গেলে কোর্টিসলের পরিমাণ কমার সুযোগ পায় না৷ এভাবে দীর্ঘ সময় ধরে কোর্টিসলের পরিমাণ বেশি থাকলে শারীরিক ও মানসিক সমস্যা তৈরি হতে পারে৷ এতে শরীরের রোগ প্রতিরোধ ক্ষমতা দূর্বল হয়ে পড়তে পারে৷ ‘জার্নাল অফ ফ্যামিলি সাইকোলজি’-তে প্রকাশিত এক গবেষণা থেকে এই তথ্য জানা গেছে৷

ঘুমানোর আগে টিভি দেখা, মোবাইল ব্যবহার

ঘুম বিশেষজ্ঞ ডা. গ্রেগরি কার্টার বলেন, ঘুমানোর অন্তত এক ঘণ্টা আগে টিভি দেখা ও মোবাইল ব্যবহার বন্ধ করতে হবে৷ না হলে ঐ সব থেকে যে নীলাভ আলো বের হয়, সেটা শরীরের স্বাভাবিক কার্যক্রম ব্যাহত করে৷ ফলে সকালবেলা ঘুম থেকে উঠাটা কঠিন হয়ে যায়৷ সূত্র : ডয়চে ভেলে।