Home » রকমারি » রকি পর্বতের গুপ্তধন

রকি পর্বতের গুপ্তধন

রূপকথার গল্পে গুপ্তধনের কথা থাকেই। সেখানে গুপ্তধনের উৎস গল্পের মতোই রহস্যময়।

123তবে উত্তর আমেরিকার রকি পর্বতমালায় আছে সত্যিকারের গুপ্তধন। এক কোটিপতি খেয়ালের বশে সেখানে পুঁতে রেখেছেন স্বর্ণ ও মূল্যবান জিনিসভর্তি একটি সিন্দুক। সে সিন্দুকের সন্ধানে রকি পর্বতমালায় চষে বেড়িয়েছে হাজারো মানুষ। তবে এখনও কেউ সেই গুপ্তধনের খোঁজ পায়নি। যুক্তরাষ্ট্রের নিউ মেক্সিকো অঙ্গরাজ্যের শিল্পকলা ও স্বর্ণমুদ্রা সংগ্রাহক ফরেস্ট ফেন সবকিছুতেই যেন রহস্যসন্ধানী। তাই তার মনে নিজের সম্পদগুলো লুকিয়ে রেখে আনন্দ পাওয়ার সাধ জাগে। তবে কীভাবে সেগুলো লুকাবেন সেটাই ভেবে পাচ্ছিলেন না। পরে তার স্বর্ণালঙ্কারগুলো ১০০ বর্গ ইঞ্চির একটি সিন্দুকে পুরে সেটি রকি পর্বতমালায় লুকিয়ে রাখেন। পাঁচ বছর আগে এ খবর ছড়িয়ে পড়ার পর এখন পর্যন্ত অনেকেই সেই সিন্দুকের খোঁজে ঘাম ঝরিয়েছেন। কিন্তু কেউই সফল হননি।

মুশকিলের ব্যাপার হলো, কেউ জানে না তিন হাজার মাইলের রকি পর্বতমালার কোন অংশে সিন্দুকটি আছে। শৌখিন ফেনও রহস্য করে বলেছেন, কলারাডো থেকে মন্টানা, নিউ মেক্সিকো বা ওয়াইয়োমিং যে কোনো অঙ্গরাজ্যে সেটি থাকতে পারে। গত গ্রীষ্মেই সেখানে সিন্দুকের খোঁজ করেছে ৩০ হাজার মানুষ। এবারের গ্রীষ্মে ৫০ হাজার মানুষ সেই গুপ্তধনের খোঁজে আগ্রহী।
যে সিন্দুকের জন্য এত খোঁজাখুঁজি, এত রহস্য_ কী আছে তাতে? ফরেস্ট ফেন জানিয়েছেন, ওতে আছে ২৫৬টি স্বর্ণমুদ্রা, মুরগির ডিমের আকারের কয়েক হাজার স্বর্ণের টুকরো, রুবি, এমারেল্ড, নীলকান্তমণি ও হীরার জিনিসপত্র। অডিটি সেন্ট্রাল ডটকম অবলম্বনে। সৌজন্যে : সমকাল।