Home » বাছাইকৃত » সবুজ শাক-পাতা খান, চিরসবুজ থাকুন

সবুজ শাক-পাতা খান, চিরসবুজ থাকুন

সুস্থ, সুন্দর আর স্লিম অর্থাৎ চিরসবুজ থাকতে কে না চায়? সবুজ সবজি, শাক-পাতা খেয়ে খুব সহজেই তারুণ্য ধরে রাখা সম্ভব। সবজিতে রয়েছে ভিটামিন সি, ই, ম্যাগনেশিয়াম, পটাশিয়াম, বিটা-ক্যারোটিন, অ্যান্টি -অক্সিডেন্টসহ নানা উপাদান।

DTC

পালং শাক
পালং শাকের উপকারিতার কথা বলার অপেক্ষা রাখে না। ২০১৪ সালে সুইডিশ গবেষকদের করা এক তথ্য থেকে জানা গেছে যে, পালং শাক তাড়াতাড়ি পেট ভরায় এবং ওজন কমাতে সহায়তা করে। এর আঁশ, ভিটামিন সি, পটাশিয়াম – যা রোগ প্রতিরোধ ক্ষমতা বাড়ায় ও, উচ্চ রক্তচাপ কমিয়ে পেশিকে শক্ত করে রক্তের ঘনত্ব কমাতেও সহায়তা করে। শাক সেদ্ধ, স্যুপ বা স্মুদি বানিয়ে খাওয়া যায়৷ সঙ্গে রসুন, লেবু বা আদা দিলে স্বাদ ও বাড়ে, উপকারও হয় বেশি।

DTC2

সবুজ ‘স্মুদি’-র রেসিপি
১৫০ গ্রাম কচি পালং শাক বা অন্য কোনো সবুজ শাক, ১৫০ মিলি. তাজা কমলার রস, দুটো কলা, ১ টেবলচামচ কাঠ বাদাম বা তিলের গুঁড়ো এবং ছোট এক টুকরো আদা৷ কেউ চাইলে অবশ্য সামান্য কাঁচামরিচও দিতে পারেন। এরপর সব কিছু একসাথে ব্লেন্ডারে দিয়ে একদম মিশিয়ে ফেলুন। মজাদার এই স্মুদি বড় এক গ্লাস খেলে কয়েক ঘণ্টা পর্যন্ত খিদে তো পাবেই না, সারাটা দিন আপনাকে রাখবে তরতাজা, মনও থাকবে প্রফুল্ল।

DTC3

সবুজ ক্যাপসিকাম মানেই ভিটামিন সি
বিশেষজ্ঞদের মতে, ফাস্টফুড এবং আধুনিক জীবনযাত্রাই নানা অসুখের কারণ। ক্যাপসিকামে রয়েছে ভিটামিন সি, পটাশিয়াম, ক্যালশিয়াম ইত্যাদি। কাঁচা ক্যাপসিকাম শুধু ডায়বেটিস বা অবসাদই দূর করে না, ওজন কমাতেও ভূমিকা রাখে। মুরগির বুকের মাংস সেদ্ধ করে ছোট করে কেটে এবং একইভাবে ক্যাপসিকাম কেটে, পুদিনা পাতা, লেবুর রস মিশিয়ে দুপুরে খেয়ে ফেলুন। ভিটামিন, মিনারেল ও আঁশযুক্ত কচকচে এই সালাদ খেলে পেট ভরবে, রাখবে চিরসবুজও।

DTC4

শসা
গ্রীষ্মকালে শরীরকে ঠান্ডা করতে শসার জুড়ি নেই, কারণ শসার মধ্যে রয়েছে শতকরা প্রায় ৯০ ভাগ পানি। তাই পুষ্টিবিদরা গরমকালে বেশি করে শসা খেতে বলেন। শসায় খুবই কম ক্যালোরি থাকে, প্রচুর পানিযুক্ত শসা শুধু শরীরকেই হালকা-পাতলা রাখে না, শসার মাস্ক বা স্লাইস করা শসা ত্বককে করে স্নিগ্ধ আর সুন্দর। শসা নানাভাবে খওয়া যায়৷ প্রচণ্ড গরমে শসার কুচি ঠাণ্ডা পানিতে কিছুক্ষণ ভিজিয়ে রেখে তা পান করলে শরীর জুড়িয়ে যায়।

DTC5

ব্রকোলি
সবুজ ফুলকপি বা সবুজ রং-এর ফুলের মতো দেখতে এই সবজিভাজি খেতে খুবই মজা এবং সহজে পেটও ভরে যায়। ব্রকোলির মধ্যে এমন কিছু উপাদান রয়েছে, যা ক্যনসারের টিউমার দমন করে। এই তথ্য দিয়েছেন জার্মানির হাইডেলব্যার্গ বিশ্ববিদ্যালয় ক্লিনিকের গবেষক ইনগ্রিড হ্যার৷ শুধু তাই নয়, ব্রকোলি হৃদরোগ ও স্ট্রোকের ঝুঁকিও কমায়৷ এছাড়া ডায়বেটিস রোগীদের জন্যও দারুণ উপকারি ব্রকোলি।

DTC6

পুদিনা পাতার গুণ
ভেষজ উদ্ভিদ পুদিনা পাতার গুণের কথা কাউকে আর আলাদা করে বলার প্রয়োজন নেই। হাজারো বছর ধরে এই পাতা ব্যবহার হয়ে আসছে গ্যাসট্রিক, পেটের সমস্যা বা ত্বকের নানা সমস্যায়৷ নারীদের সৌন্দর্যচর্চায় পুদিনার পাতা খুবই পরিচিত। পুদিনা পাতার রস, চা, চাটনি ইউরোপেও আজকাল বেশ জনপ্রিয়। সবুজ ঔষধি পুদিনা পাতা খেয়ে শরীর ও ত্বককে সবুজ রাখুন। তেমন যত্ন ছাড়াই পুদিনা গাছ বাগান, টব বা পানিতে হয়।

DTC7

বরবটি
সবুজ বরবটিতে রয়েছে প্রচুর আঁশ, প্রোটিন, আয়রন, ক্যালশিয়াম ও শর্করা – মানে প্রচুর পুষ্টি গুণ। এই কারণে ডায়বেটিস রোগীদের জন্যও বরবটি বেশ উপকারি। বরবটি নানাভাবে খাওয়া যায়৷ জলপাইয়ের তেলে সামান্য ভেজে খেতে দারুণ লাগে এই সবজি৷ তাছাড়া পুষ্টিগুণ সম্পন্ন সবুজ সবজির মধ্যে বরবটি একটি, যা অল্প খেলেই পেট ভরে যায়। অর্থাৎ বাড়তি মেদ হবার কোনো সুযোগ নেই বলে ফিট ও সুন্দর থাকা যায় সহজেই!

DTC8

সালাদ পাতা
বিভিন্ন সবুজ সালাদ বা লেটুস পাতায় রয়েছে অ্যান্টি-অক্সিডেন্ট, যা তারুণ্য ধরে রাখতে সহায়ক। সবজিতে থাকা ভিটামিন সি এবং ই সূর্যের অতিবেগুনি রশ্মি থেকে আপনাকে রক্ষা করতে সহায়তা করে থাকে। তাছাড়া শাক বা সালাদ পাতা খাবার সাজানোর জন্যও ব্যবহার করা যায়, যা দেখতে সুন্দর তো লাগেই, খাবারে রুচিও বাড়ায়। তবে শাক-সবজির ক্ষেত্রে সবচেয়ে যেটা জরুরি হলো, একে হতে হবে একদম টাটকা। তা না হলে স্বাদে এবং গুণে হেরফের হবেই। সূত্র : ডয়চে ভেলে