Home » ফিচার » গ্যাস বেলুন ফ্যাক্টস

গ্যাস বেলুন ফ্যাক্টস

ফাহমিদা হক
১৭৮৩ সালে আকাশে প্রথমবারের মতো ওড়ে গ্যাস বেলুন। এতে ছিল একটি মোরগ, একটি হাঁস আর একটি ভেড়া। ১৫০০ ফুট ওপরে উঠে আট মিনিট ধরে ফ্রান্সের ভার্সাই নগরীর ওপর দিয়ে দুই মাইল পথ পাড়ি দিয়ে যাত্রীসহ নিরাপদেই মাটিতে নেমে আসে বেলুন।

প্রথমবার যখন হট এয়ার বেলুনে মানুষ বহনের সিদ্ধান্ত হয়, ষষ্ঠদশ লুই কিছুতেই চাইছিলেন না কোনো দুর্ঘটনার দায়ভার নিতে। তাই বেছে বেছে মৃত্যুদণ্ডপ্রাপ্ত বাঘা বাঘা অপরাধী দিয়ে বেলুন চালাতে চাইছিলেন। কিন্তু বিজ্ঞানী জিয়ান-ফঁ্রসোয়া পিলাত দো রোজিয়ের আর অভিজাত বংশের লোক ফঁ্রসোয়া লরেন্ত বেলুনে চড়তে রাজি হওয়ায় এ পরিকল্পনা বাদ দিতে হয় তাঁকে। ১৭৮৩ সালের ২১ নভেম্বর ২০ মিনিট বেলুনে চড়ে আকাশে ভেসে থাকেন তাঁরা।

Gas-Ballon

দুঃখজনক হলেও সত্য, প্রথম সফলভাবে বেলুনে চড়ে ভ্রমণ করা রোজিয়েরই আবার বেলুন দুর্ঘটনায় মারা যাওয়া প্রথম মানুষ। প্রথমবার বেলুনে চেপে আকাশে ওড়ার দুই বছর পর তিনি ঠিক করেন, নতুন এক ধরনের বেলুনে চড়ে ইংলিশ চ্যানেল পাড়ি দেবেন। গরম বাতাস আর হাইড্রোজেনচালিত তাঁর এ বেলুন আকাশে ভাসার ৩০ মিনিটের মাথায় বিস্ফোরিত হয়, যার ফলে রোজিয়ের আর তাঁর সহপাইলট মারা যান।

প্রেমের জন্য মানুষ তো কত কিছুই করে; কিন্তু তাই বলে বেলুন-দৌড়? এমনটাই হয়েছিল ১৮০৮ সালে, যখন ফরাসি অপেরা ড্যান্সার তিরেভিতকে পাওয়ার আশায় দুই ফরাসি যুবক বেলুন নিয়ে উড়ে যান প্যারিসের আকাশে। নিচে জড়ো হওয়া লোকেরা দেখতে লাগল এ অদ্ভুত প্রতিযোগিতা। দুই যুবক বেলুনে চড়ে আবার একে অন্যের দিকে গুলিও ছুড়তে থাকেন। পরিণামে বেলুনসহ নিচে আছড়ে পড়ে মৃত্যু হয় এক প্রতিযোগীর।

গ্যাস বেলুনে আফ্রিকা পাড়ি দেওয়ার অভিযান নিয়ে জুলভার্ন লিখেছেন তাঁর বিখ্যাত বই ‘ফাইভ উইকস ইন এ বেলুন’। বইটি প্রথম প্রকাশিত হয় ১৮৬৩ সালে।

হট এয়ার বেলুনের সবচেয়ে বড় উৎসব হয় প্রতিবছর নিউ মেক্সিকোর আলবুকার্কে। ৯ দিন ধরে চলা এ উৎসবে আকাশে ওড়ে ৭৫০টিরও বেশি বেলুন। সূত্র : কালের কণ্ঠ