Home » ডিটিসি ভ্রমণ বার্তা » বাইক্কার বিলে আসছে অতিথি পাখির দল

বাইক্কার বিলে আসছে অতিথি পাখির দল

এম এ রকিব
দেশের চা শিল্পাঞ্চল ও শীত প্রধান এলাকা হিসেবে পরিচিত মৌলভীবাজারের শ্রীমঙ্গলে বেশ কয়েক দিন ধরে বিরাজ করছে শীতের আমেজ। সন্ধ্যার পর থেকে সকাল পর্যন্ত হালকা থেকে মাঝারি শীত অনুভূত হচ্ছে এ অঞ্চলে। আর শীতের আগমনের সাথে সাথে মৎস্য ও পাখির অভয়াশ্রম বাইক্কা বিলে আসতে শুরু করেছে অতিথি পাখির দল।

BAKKA-BIL-pic-

এখানে প্রতিবছরের মতো এবারও শীতপ্রধান অঞ্চল- সাইবেরিয়াসহ বিশ্বের বিভিন্ন অঞ্চল থেকে অতিথি পাখি আসতে শুরু করেছে। মূলত নভেম্বর থেকে এসব পাখি এখানে আসে এবং গ্রীষ্মের শুরুতে ওরা ফিরে যায় নিজেদের ঠিকানায়। ইতোমধ্যে বিলে বেশ কিছু ল্যাঞ্জা হাঁস এসেছে। এসব হাঁসকে বরণ করেও নিয়েছে বিলের জলজ প্রকৃতি। অতিথি পাখির কলকাকলিতে মুখরিত হতে শুরু করেছে বাইক্কা বিল। এছাড়াও বেশকিছু বিপন্নপ্রায় ও বিরল দেশি পাখি সারা বছরই বাইক্কা বিলে অবস্থান করছে। ওরা নিরাপদ আবাস হিসেবে বেছে নিয়েছে এ বিলকে।

এদিকে গত কয়েক দিন থেকে শ্রীমঙ্গলের তাপমাত্রা কমতে শুরু করেছে। শ্রীমঙ্গল আবহাওয়া পর্যবেক্ষণ কেন্দ্র শুক্রবার তাপমাত্রা রেকর্ড করেছে ১৬.৩ ডিগ্রি সেলসিয়াস। বৃহস্পতিবার ছিল ১৬.০ ডিগ্রি, বুধবার ছিল ১৫.৯ ডিগ্রি, মঙ্গলবার ছিল ১৬.৮ এবং সোমবার ছিল ১৭ ডিগ্রি সেলসিয়াস। গত ক’দিন ধরে শ্রীমঙ্গলে চলতি মৌসুমের এটিই সর্বনিম্ন তাপমাত্রা বলে জানিয়েছেন স্থানীয় আবহাওয়া পর্যবেক্ষণ কেন্দ্রের সিনিয়র অবজারভার মো. হারুনুর রশিদ। তিনি আরো বলেন, চলতি নভেম্বর মাসেই শ্রীমঙ্গলের তাপমাত্রা ১০-১২ ডিগ্রিতে নেমে আসবে।

BAKKA-BIL--03

প্রতি বছরই শীত মৌসুমে হাজার হাজার অতিথি পাখি ছুটে আসে এখানে নিরাপদ আশ্রয় ও খাদ্যের সন্ধানে। ভাব জমিয়ে নেয় দেশীয় পাখিদের সাথে। এখানে ক্রমশ সখ্যতা ও প্রেমের বন্ধনে স্থায়ীভাবে বসবাসও করছে অনেক পাখি। আর শীতের তীব্রতা বাড়ার সাথে সাথে বদলে যায় বাইক্কা বিলের রূপও। অপরূপ সৌন্দর্যের এই বাইক্কা বিলে নভেম্বরের প্রথম থেকেই আসতে শুরু করে অতিথি পাখির ঝাঁক। প্রতিদিন বিচিত্র রং আর বর্ণে ঝাঁকে ঝাঁকে অতিথি পাখির কলকাকলীতে মুখরিত থাকে এই বিল। এদের কিচির-মিচির শব্দে বিলে এক মধুময় আবহ বিরাজ করে।

বড়গাঙ্গিনা সম্পদ ব্যবস্থাপনা সংগঠনের সদস্য ও পাখি পর্যবেক্ষণ টাওয়ারের পর্যবেক্ষক মিরাশ মিয়া বলেন, অতিথি পাখির মধ্যে পানকৌড়ি, কাস্তেচড়া, কানিবক, ধুপনিবক, পাতিসরালী, রাজসরালী, পিন্টেল, সাদাবক, দলপিপি, ঈগল, বেগুনি কালেম, ছোট মাথা টিটি, ল্যাঞ্জা হাঁস, সরালি, মরচে রঙ ভুতিহাঁসসহ আরো অনেক নামের পাখি বিলে আসে। তবে এখন পর্যন্ত বেশ কিছু ল্যাঞ্জা হাঁস আমাদের বাইক্কা বিলে এসেছে। এতে বুঝা যায় অন্য পাখিরাও কিছু দিনের মধ্যেই বরফের দেশ থেকে আসবে।

এছাড়া আমাদের দেশের আবাসিক পাখির মধ্যে বালি হাঁস, পাতি সরালি, বেগুনি কালেমসহ বিভিন্ন প্রজাতির হাঁস বিলে আসতে শুরু করেছে। তবে বিল পরিস্কার থাকায় পাখিগুলো বিলে নামলেও বেশি সময় অবস্থান করছে না। পাখিগুলো বিলের চারপাশে বিভিন্ন কচুরিপানার মধ্যেই থাকছে। আরো কয়েক দিন পরেই হয়তো তারা বিলে দীর্ঘ সময় অবস্থান করতে শুরু করবে। তখন বাইক্কা বিল এসব অতিথি পাখির কলকাকলিতে মুখর হয়ে উঠবে।