Home » বাছাইকৃত » বাংলাদেশের দক্ষিণাঞ্চলের কয়েকটি নদী

বাংলাদেশের দক্ষিণাঞ্চলের কয়েকটি নদী

নদীমার্তৃক বাংলাদেশের আনাচে কানাচে জালের মতো ছড়িয়ে আছে অসংখ্য নদ-নদী৷ তবে দেশের অন্যান্য এলাকার চেয়ে দক্ষিণাঞ্চলে নদীর সংখ্যা অনেক বেশি৷

কীর্তনখোলা

কীর্তনখোলার তীরে বরিশাল শহর অবস্থিত৷ এটি মূলত আড়িয়াল খাঁ নদের একটি শাখা৷ বরিশাল এবং ঝালকাঠি জেলাজুড়ে বিস্তৃত এ নদীর দৈর্ঘ্য ১৬০ কিলোমিটার৷ এ নদীর বাঁকে বাঁকে প্রাকৃতিক সৌন্দর্য অবর্ণনীয়৷

সুগন্ধা

ঝালকাঠি জেলার নলছিটি উপজেলার দপদপিয়া এলাকায় কীর্তনখোলা নদী থেকে উৎপত্তি সুগন্ধা নদীর৷ নদীটির দৈর্ঘ্য ২১ কিলোমিটার, গড় প্রস্থ প্রায় ৪০০ মিটার৷ নদীটি মগড়া, নলছিটি, কুলকাটি ও পোনাবালিয়া হয়ে ঝালকাঠি জেলার গাবখান ধানসিঁড়ি ইউনিয়ন হয়ে বিশখালি নদীতে মিলেছে৷

বিশখালি

বাংলাদেশের দক্ষিণ-পশ্চিমাঞ্চলের ঝালকাঠি ও বরগুনা জেলায় প্রবাহিত নদী৷ ঝালকাঠি জেলার গাবখান ধানসিঁড়ি এলাকায় সুগন্ধা নদী থেকে উৎপত্তি হয়েছে৷ খরস্রোতা এ নদীটি ১০৫ কিলোমিটার দীর্ঘ এবং ঝালকাঠির রাজাপুর, কাঁঠালিয়া ও বেতাগী উপজেলা এবং বরগুনার পাথরঘাটা হয়ে বঙ্গোপসাগরে পড়েছে৷ এ নদীর ইলিশ খুবই সুস্বাদু৷

ধানসিঁড়ি

কবি জীবনানন্দ দাশের স্মৃতিবিজড়িত ধানসিঁড়ি নদী ঝালকাঠি জেলার সুগন্ধা নদী থেকে উৎপত্তি হয়েছে৷ নদীটি মোল্লাবাড়ি, বারৈবাড়ি এবং রাজাপুরের হাইলকাঠি, ইন্দ্রপাশা ও বাঁশতলা হয়ে জাঙ্গালিয়া নদীর মোহনায় মিশেছে৷ এক সময়ের প্রমত্তা নদীটি এখন মৃতপ্রায়৷ কবি জীবনানন্দ দাশ তাঁর রূপসী বাংলা কবিতায় এই ধানসিঁড়ি নদীর তীরে ফিরে আসার আকুতি ব্যক্ত করেছিলেন এভাবে – ‘আবার আসিব ফিরে ধানসিঁড়িটির তীরে এই বাংলায়’৷

সন্ধ্যা

বাংলাদেশের দক্ষিণাঞ্চলের বরিশাল ও পিরোজপুর জেলার একটি নদী৷ প্রায় ৬১ কিলোমিটার দৈর্ঘ্যের এ নদীটি বরিশালের বাবুগঞ্জে আড়িয়াল খাঁ নদ থেকে উৎপত্তি হয়ে পিরোজপুরের শরীকতলায় কচা নদীতে মিলেছে৷ এ নদীর তপসে এবং পোয়া মাছ খুবই সুস্বাদু৷

কচা

দক্ষিণাঞ্চলের পিরোজপুর জেলার একটি নদী৷ ১৫ কিলোমিটার দৈর্ঘ্যের এ নদীটি জেলার শরিকতলা-ডুমুরিতলা ইউনিয়নে কালীগঙ্গা নদী থেকে উৎপত্তি হয়েছে৷ প্রমত্তা এ নদীটি জেলার বিভিন্ন এলাকায় প্রবাহিত হয়ে ইন্দুরকানী উপজেলায় বলেশ্বর নদীতে মিলেছে৷

বলেশ্বর

বাংলাদেশর দক্ষিণাঞ্চলের পিরোজপুর, বাগেরহাট ও বরগুনা জেলার একটি নদী৷ নদীটির দৈর্ঘ্য ১৪৬ কিলোমিটার৷ দক্ষিণে প্রবাহিত হয়ে হরিণঘাটা নদীর সাথে মিলে বঙ্গোপসাগরে পড়েছে নদীটি৷ বলেশ্বর নদীর পাশেই পৃথিবীর সবচেয়ে বড় শ্বাসমূলীয় বন ‘সুন্দরবন’ অবস্থিত৷

পশুর

বাংলাদেশের দক্ষিণাঞ্চলের খুলনা ও বাগেরহাট জেলার একটি নদী৷ ১০৪ কিলোমিটার দীর্ঘ এ নদীটি বাংলাদেশের গভীরতম নদীগুলোর একটি৷ খুলনা জেলার বাজুয়া ইউনিয়নে কাজিবাছা নদী থকে উৎপত্তি হয়ে সুন্দরবনের শিবসা নদীতে মিশেছে৷ বঙ্গোপসাগরের কাছে এ নদী কুঙ্গা নদী নামে পরিচিত৷ সৌজন্যে : ডয়েচেভেলে