Home » রকমারি » নাসা কীভাবে চন্দ্রযানের ল্যান্ডারের সঙ্গে যোগাযোগের চেষ্টা করছে

নাসা কীভাবে চন্দ্রযানের ল্যান্ডারের সঙ্গে যোগাযোগের চেষ্টা করছে

গত ৭ সেপ্টেম্বর ভোররাতে চন্দ্রপৃষ্ঠ থেকে ২.১ কিলোমিটার দূরে থাকাকালীন হঠাৎই চন্দ্রযান ২ (Chandrayaan 2) এর ল্যান্ডার বিক্রমের সঙ্গে যোগাযোগ বিচ্ছিন্ন হয়ে যায় ইসরোর, তারপরেই সেটি চন্দ্রপৃষ্ঠে অবতরণ করে বলে জানা গেছে। তবে হাল ছাড়েনি ভারতীয় মহাকাশ গবেষণা সংস্থা ইসরো। ইসরোর আধিকারিকরা জানিয়েছেন, ভারতীয় মহাকাশ গবেষণা সংস্থাটি (ISRO) বেঙ্গালুরুর নিকটে বাইয়ালালুতে অবস্থিত ডিপ স্পেস নেটওয়ার্ক (ডিএসএন) এর মাধ্যমে যোগাযোগের সিগন্যাল পাঠিয়ে চাঁদে অবতরণ করা বিক্রম ল্যান্ডারের (Vikram lander) কাছে পৌঁছানোর চেষ্টা চালিয়ে যাচ্ছে। মার্কিন মহাকাশ গবেষণা সংস্থা ন্যাশনাল অ্যারোনটিকস অ্যান্ড স্পেস অ্যাডমিনিস্ট্রেশন বা নাসার জেট প্রোপালশন ল্যাবরেটরিও ল্যান্ডার বিক্রমকে রেডিও সংকেত পাঠিয়েছে বলে জানা গেছে।

নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক ইসরোর এক আধিকারিক সংবাদসংস্থা আইএএনএসকে বলেছেন, “চাঁদে ল্যান্ডার বিক্রমের সঙ্গে যোগাযোগ তৈরি করার সবরকম চেষ্টা করা হচ্ছে। আগামী ২০-২১ সেপ্টেম্বর পর্যন্ত সূর্যালোক থাকাকালীন চাঁদের যে জায়গায় বিক্রম অবতরণ করেছে তার সঙ্গে যোগাযোগের চেষ্টা করা হবে”।

ইসরো বেঙ্গালুরুর কাছে অবস্থিত বাইয়ালালুতে ভারতীয় ডিপ স্পেস নেটওয়ার্ক (আইডিএসএন) এর মাধ্যমে বিক্রমের সঙ্গে সংযোগ স্থাপনের চেষ্টা করছে।

ইসরো বেঙ্গালুরুর কাছে অবস্থিত বাইয়ালালুতে ভারতীয় ডিপ স্পেস নেটওয়ার্ক (আইডিএসএন) এর মাধ্যমে বিক্রমের সঙ্গে সংযোগ স্থাপনের চেষ্টা করছে।

২০১৮ সালে হারিয়ে যাওয়া আমেরিকান আবহাওয়া উপগ্রহ ইমেজ স্যাটেলাইটটি যিনি খুঁজে বের করেছিলেন সেই শখের জ্যোতির্বিজ্ঞানী স্কট টিলি, ১০ সেপ্টেম্বর ট্যুইট করেন, “# চন্দ্রযান ২ এর বিক্রমলান্ডারকে খুঁজে পাওয়ার আশায় # চাঁদে # ডিএসএন 24 বীম 12 কেডব্লিউ আরএফ এর সঙ্গে যোগাযোগ স্থাপন করা হচ্ছে”।

“2103.7MHz এ EME (আর্থ মুন আর্থ অর্থাৎ পৃথিবী চাঁদ পৃথিবী) এর মাধ্যমে চাঁদ থেকে পৃথিবীতে ফিরে আসা প্রতিচ্ছবিগুলির সংকেতের একটি রেকর্ডিংপাওয়া গেছে”।

“ইতিমধ্যেই ডিএসএন 24 আশা করে যোগাযোগ স্থাপনের চেষ্টায় বিকন অব্যাহত রেখেছে # বিক্রম ল্যান্ডার সাড়া দেবে …সবাইকে শুভরাত্রি !” সম্প্রতি এক টুইট বার্তায় বলেন শখের জ্যোতির্বিজ্ঞানী স্কট টিলি।

এর আগে ইমেজ স্যাটেলাইটটি ২০০০ সালে নাসা চালু করেছিল এবং পাঁচ বছর পরে সেটির সঙ্গে যোগাযোগ হারিয়ে ফেলে তাঁরা। সৌজন্যে: এনডিটিভি