Home » ফিচার (page 5)

ফিচার

সবচেয়ে ছোট রেলওয়ে

আনিকা জীনাত লস অ্যাঞ্জেলেসের শহরতলিতে আছে বাংকার হিল নামের এক জায়গা। এলাকাটি সবাই মোটামুটি এক নামে চেনে। কারণ এখানেই রয়েছে পৃথিবীর সবচেয়ে ছোট রেলওয়েটি। এক বগির ট্রেনে চেপে শুধু পাহাড়ে ওঠা-নামা করা যায়। ১৯০১ সালে অ্যাঞ্জেলস ফ্লাইট নামের এই রেলওয়ে তৈরি করা হয়েছিল দ্রুত সময়ে পাহাড়ে ওঠার জন্য। মূলত ওলিভ স্ট্রিট থেকে হিল স্ট্রিটে যাওয়ার জন্যই রেলগাড়ি দুটি ব্যবহার করা ...

বিস্তারিত »

বিশ্বসেরা লাইব্রেরি

আমেরিকান লাইব্রেরি অব কংগ্রেস পৃথিবীর সবচেয়ে বড় লাইব্রেরি। সুবিশাল এই লাইব্রেরির সংগ্রহে আছে সর্বাধিক সংখ্যক বই, রেকর্ডিংস, মানচিত্র ও পাণ্ডলিপি। এগুলো সংখ্যায় ৩ কোটি ৩০ লাখ ১২ হাজার ৭৫০টি। এটি ওয়াশিংটন ডিসিতে অবস্থিত এবং আমেরিকার সবচেয়ে পুরনো লাইব্রেরি। আমেরিকান লাইব্রেরি অব কংগ্রেস স্থাপিত হয়েছিল ১৮০০ সালে। প্রেসিডেন্ট জন অ্যাডামস যখন সরকারি কার্যাবলী ফিলাডেলফিয়া থেকে ওয়াশিংটনে স্থানান্তর করেন তখন থেকে এর ...

বিস্তারিত »

বরফ গুহা

মুহাম্মদ মোস্তাফিজুর রহমান বরফ ঝুলে আছে আপনার মাথার উপর। অনেকটা শলাকার মতো। পায়ের নিচে বরফ। আবার পাশেও বরফ। মনে হবে কোনো শিল্পী এগুলো সাজিয়ে রেখেছে ক্রিস্টাল দিয়ে। আসলে এটি একটি গুহা। গুহাটি যুক্তরাষ্ট্রের উইসকনসিলের অ্যাপোস্টেল দ্বীপে অবস্থিত। উইসকনসিল যুক্তরাষ্ট্রের মধ্যপশ্চিমের অঙ্গরাজ্য। এই রাজ্যে শীতকালে প্রায়ই তুষারঝড় হয়। সড়কগুলোতেই তখন ১০-১৫ ইঞ্চি বরফের স্তর জমে। মারাও যায় অনেক মানুষ। অ্যাপোস্টেল দ্বীপটি ...

বিস্তারিত »

হাতিটির দিনরাত্রি

ভাসতে ভাসতে ভারত থেকে এসেছে হাতিটি। ব্রহ্মপুত্রের বিভিন্ন চর ঘুরে গেছে যমুনার চরে। ২০ জুলাই পর্যন্ত তার ২২ দিনের খবর জানাচ্ছেন কুদ্দুস বিশ্বাস সাহেবের আলগা ইউনিয়নের চর বাগুয়ারচর, ২৮ জুন কুড়িগ্রামের রৌমারীর সাহেবের আলগা সীমান্তের আন্তর্জাতিক মেইন পিলার নম্বর ১০৫২-এর কাছ দিয়ে ব্রহ্মপুত্র নদের বানের পানিতে ভেসে বাংলাদেশের অভ্যন্তরে প্রবেশ করে চরবাগুয়ার আটকা পড়ে একটি বুনো হাতি। ভারতের আসাম রাজ্যের ...

বিস্তারিত »

ঔষধি গাছের গ্রাম

নাটোর শহর থেকে ১৫ কিলোমিটার খোলাবাড়িয়া। গ্রামের পথের দুই ধার ও জমিতে গাছ আর গাছ। যেনতেন গাছ নয়, অনেক জটিল রোগ সারাতে পারে এরা। গাছের পরিচয়েই খোলাবাড়িয়াকে ডাকা হয় ‘ঔষধি গ্রাম’। জানাচ্ছেন রেজাউল করিম রেজা। লক্ষ্মীপুর, খোলাবাড়িয়া হয়ে কাঁঠালবাড়িয়া—পথের দুই ধার ভরা সবুজ। ঔষধি গাছই বেশি। শুধু ক্ষেতেই নয়, বাড়ির খালি জায়গায়ও রয়েছে ছোট বড় বাগান। ঘৃত কমল, স্বর্ণলতা, উলটকম্বল, ...

বিস্তারিত »

ঘুম ভাঙে পাখির ডাকে

আকমল হোসেন সকালবেলা পাখির ডাকে ঘুম ভাঙার প্রচলিত কথাটি হয়তো এখন সব গ্রামের ক্ষেত্রে আর খাটে না। গাছপালা, ঝোপঝাড় এতটাই কমে গেছে যে পাখির নিরাপদ আবাস এখন সবখানে নেই। তবু কোথাও না কোথাও পাখি বাসা বাঁধে, বাচ্চা ফোটায়। কোনো কোনো জায়গায় তারা মানুষেরই প্রতিবেশী হয়ে আছে। পাখির এমন একটি আশ্রয়কেন্দ্র হচ্ছে মৌলভীবাজার জেলার কমলগঞ্জ উপজেলার মুন্সীবাজার ইউনিয়নের সরিষকান্দি গ্রামে উপজেলা ...

বিস্তারিত »

হাতিরূপি পাহাড়

আকৃতিগত সাম্যাবস্থার কারণে আমরা প্রায়ই পাহাড়কে হাতি এবং হাতিকে পাহাড়ের সাথে তুলনা করে থাকি। কিন্তু আমাদের অনেকেরই অজানা যে, প্রকৃতির নিয়মেই পৃথিবীর বিভিন্ন স্থানে গড়ে উঠেছে এমন কিছু পাহাড় যাদের আকৃতিই কেবল হাতির মতো নয়, তাদের গঠনও হাতির অনুরূপ। এক নজর দেখে যে কেউ এই পাহাড়গুলোকে হাতি বলে ভুল করে বসবেন। পাহাড়গুলোর আকৃতি ও গঠনের পাশাপাশি এগুলোর অবস্থান হুবহু হাতিদের ...

বিস্তারিত »

স্মার্ট গ্রামের গল্প

দেব দুলাল গুহ শহরের বাসিন্দাদের কাছে নিরবচ্ছিন্ন বিদ্যুৎ সরবরাহ একধরনের দাবি হলেও, ভারতের গ্রামাঞ্চলের প্রায় ২০ কোটি সুবিধাবঞ্চিত মানুষের কাছে বিদ্যুৎ একধরনের সুবিধা, কিন্তু অধিকার নয়। এমনটাই মনে করেন ভারতীয় বংশোদ্ভূত মার্কিন পদার্থবিদ অশোক দাস। শহরগুলোকে ‘স্মার্ট সিটি’ হিসেবে গড়ে তোলার প্রকল্পে ইতিমধ্যেই ভারত সরকার ৯৮ হাজার কোটি রুপি বরাদ্দ দিয়েছে। অশোক দাস বলেন, ‘বড় শহরে গ্রাহকদের আচরণে পরিবর্তন আনাটা ...

বিস্তারিত »

এশিয়ার সবচেয়ে পরিচ্ছন্ন গ্রাম মাওলিনং

মুহাম্মদ মোস্তাফিজুর রহমান এশিয়ার পরিচ্ছন্নতম গ্রাম। বলা হয় আল্লাহর নিজের বাগান। ভারতের মেঘালয় রাজ্যের পাহাড়ের কোলে আকাশে ছড়ানো মেঘের কাছাকাছি ছোট্ট এই গ্রামটির নাম মাওলিনং। ঘন সবুজের আড়ালে মেঘ আর সূর্য এখানে রোজ লুকোচুরি খেলতে আসে। এক ঝলক দেখে মনে হয় এর প্রত্যেকটা বাঁক বুঝি সেই ছোট বেলায় পড়া চিনা রূপকথার বইয়ের পাতা থেকে উঠে এসেছে। গ্রামটিতে প্রবেশে কোথাও কোনো ...

বিস্তারিত »

পাথরের টুকরার সেতু

বারো শতকে তৈরি চীনের ফুজিয়ান প্রদেশের এই সেতু পরিচিত আনপিং সেতু নামে। বিশাল বিশাল পাথরের টুকরা দিয়ে তৈরি সেতুটি দৈর্ঘ্যে দুই হাজার ৭০০ মিটার। ১৯০৫ সাল পর্যন্ত এটাই ছিল চীনের দীর্ঘতম সেতু। পথচারীদের বিশ্রামের জন্য একসময় সেতুটির মাঝখানে পাঁচটি প্যাভিলিয়ন ছিল। যদিও এখন অবশিষ্ট আছে কেবল একটি। ঐতিহাসিক এলাকা হিসেবে সেতুটিকে সংরক্ষণের আওতায় এনেছে চীন সরকার। আর এর আশপাশের এলাকাকে ...

বিস্তারিত »